Saturday, June 15, 2019

ব্লগে পোস্ট পাবলিশ করার আগে যে বিষয়গুলো অবশ্যই মনে রাখবেন -Before publishing the post in the blog, the things that must be remembered

ব্লগে পোস্ট পাবলিশ করার আগে যে বিষয়গুলো অবশ্যই মনে রাখবেন -Before publishing the post in the blog, the things that must be remembered: আমাদের অনেকেই ব্লগিং করে। কেও নিজের ব্লগে ব্লগিং করে আবার কেও কমিউনিটি ব্লগে। যারা নিজস্ব ব্লগ নিয়ে প্রফেশনালি ব্লগিং করছেন বা করার চেষ্টা করছেন আজ তাদের জন্য কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ টিপস শেয়ার করব।

সেই টিপস হলো আপনার ব্লগে একটি পোস্ট পাবলিশ করার আগে যে বিষয় গুলোর উপর নজর দিবেন ….

Tech News, Breaking News, News Update, Health Tips, Android, Computer,website,seo, mobile review,earning tips,bloging,blogger templet
ব্লগে পোস্ট পাবলিশ করার আগে যে বিষয়গুলো অবশ্যই মনে রাখবেন

আর্টিকেল রিভিসন দিন

ব্লগে একটি পোস্ট করার আগে তা ভালোভাবে রিভিসন দিবেন। এতে পোস্টের কোথাও কোন অসামঞ্জস্য থাকলে তা ধরা পড়বে। বাক্য গঠনে কোন সমস্যা হলে তা ঠিক করে নিতে পারবেন। বই লেখকদের মতো যদি তৃতীয় পক্ষ দিয়ে পুরো পোস্টটি পড়াতে পারেন তাহলে সেটা সবচেয়ে ভালো হয়।এতে আপনার পাঠকদের চাওয়া পাওয়া নিয়ে পূর্ব ধারণা পাবেন।


কন্টেন্ট সাজানো
একটি ব্লগের ৮০% সফলতা নির্ভর করে সাজানো গোছানো কন্টেন্টের উপর। তবে বিষয়টি এতো সহজ নয়। কন্টেন্ট সাজানো রীতিমতো একটি চ্যালেন্জিং বিষয়। আপনি লেখায় যা বর্ণনা করতে চাচ্ছেন তা কঠিন ভাষায় না লিখে সাবলীল ও সাচ্ছন্দ্যময় ভাষায় লিখুন। যাতে পাঠকদের বুঝতে সহজ হয়। বড় বাক্য ব্যবহার না করে ছোট ছোট বাক্য ব্যবহার করে তথ্যগুলো তুলে ধরুন। আপনি যদি বিভিন্ন তথ্য দিতে চান তাহলে আগেই ঠিক করে নিন কোন তথ্যের পর কোনটা দিবেন। এলোমেলো তথ্য দেওয়া থেকে নিজেকে বিরত রাখুন। জোর দিয়ে কোন কিছু প্রকাশ করতে চাইলে সেটি বোল্ড করে দিন।


কি-ওয়ার্ডের ব্যবহার

যেকোন ব্লগের অনপেজ এসইও এর জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হলো কন্টেন্টে সঠিকভাবে কি-ওয়ার্ডের ব্যবহার। এজন্য গুগল এনালিটিকস থেকে আপনার প্রয়োজনীয় কি-ওয়ার্ড গুলো বেছে নিন। চেষ্টা করবেন সার্চ ভলিউম ও কম্পিটিশন মাঝারি হয় এমন কি-ওয়ার্ড নির্বাচন করার। একটি ৭০০-৮০০ ওয়ার্ডের পোস্টে ২ টি কি-ওয়ার্ড ৭-৮ বার ব্যবহার করাই যথেষ্ট বলে আমি মনে করি। তবে কি-ওয়ার্ড গুলো লং টেইল হলে ভালো হয়।কারণ লং টেইল কি-ওয়ার্ড দিয়ে আমি সফলতা পেয়েছি।তারপরও পুরো বিষয়টি নির্ভর করে সার্চ ইঞ্জিনের উপর যে সে আপনার এই আর্টিকেলের কোন বিষয়টিকে কি-ওয়ার্ড হিসেবে ধরে নেবে।


ইন্টার লিঙ্কিং

এটা ব্লগের জন্য ভালো একটি প্রচেষ্টা। আপনার ব্লগের সদ্য প্রকাশ হওয়া কন্টেন্ট থেকে যদি রিলিটেড পুরোনো কোন পোষ্টে লিঙ্ক করে দেন তবে সেটি পাঠকের জন্য যেমন উপকারী তেমনি সার্চ ইঞ্জিনের র‍্যাঙ্কিং ভালো করতেও সহায়তা করবে। তবে ভাল হয় যদি আপনি কন্টেন্ট থেকে হাইপারলিঙ্ক করে দেন।

ছবির ব্যবহার

আলসেমি করে পোস্টে ছবি দেওয়া হয়ে উঠছেনা! ফলস্বরূপ আপনি আপনার ব্লগের পাঠক হারাচ্ছেন।পোস্টের যেখানে দরকার সেখানে প্রাসঙ্গিক ছবি ব্যবহার করুন। অবশ্যই ছবির Title এবং Alt tag ঠিক মত দিন। সার্চ ইঞ্জিনের জন্য এটি অতিব জরুরি। এলোমেলো এবং যেকোন ছবি ব্যবহার করা থেকে বিরত রাখুন নিজেকে। যথাযথ ছবির ব্যবহার আপনার পোষ্টটিকে আরো আকর্ষনীয় করে তুলবে। প্রয়োজনে ছবির ক্রেডিট এবং সোর্স উল্লেখ করে দিন।

Call to Action:

অনেকেই হয়ত এই বিষয়টি শুনেছেন কিন্তু সঠিক জানেন না ব্যপারটি কি। খুব সোজা এটি – আপনি আপনার পোস্টের মাধ্যমে পাঠকের কাছে একটি বার্তা পৌছে দিয়েছেন এখন তাদের কে বলুন কি করতে হবে বা তাদের কি করা উচিত। হতে পারে এটি আপনার প্রোডাক্টটি কেনার প্রতি উদ্বুধ্ব করা বা আপনার নিউজ লেটারে সাইন আপ করানো বা কমেন্ট করা। বিষয়টি যাই হোক না কেন- তা পরিষ্কার ভাবে এবং strongly উপস্থাপন করুন। আর CALL TO ACTION এর বাটনটি রাখুন পোস্টের একদম উপরে অথবা নিচে।


এই বিষয়গুলো মেনে যদি আপনি আপনার ব্লগে পোষ্ট করতে পারেন তাহলে আশা করা যায় আপনি সফল হতে পারবেন।


কারো কোন সমস্যা হলে কমেন্ট করুন
অনুগ্রহ করে আজেবাজে কমেন্ট করবেন না ..ভুল ত্রুটি ক্ষমার চোখে দেখুন💜
ধন্যবাদ সবাইকে
Previous Post
Next Post

0 Comments: