জেনে নিন পান পাতার স্বাস্থ্য উপকারিতা ও অপকারিতা
বিসমিল্লাহির রহমানির রহিম
আসসালামু আলাইকুম
Hello! Friends, আমার আজকের পোষ্টে আপনাদের সকলকে স্বাগতম জানাচ্ছি,,,,

তোমরা সকলে কেমন আছো? আশা করি ভালো আছো সবাই ভালো আছো। *আমি আলহামদুলিল্লা ভালো আছি

আজকের টপিক,

জেনে নিন পান পাতার স্বাস্থ্য উপকারিতা ও অপকারিতা
স্বাস্থ্য ডেস্ক: দক্ষিণ এশিয়ার খুবই জনপ্রিয় একটি খাবারের নাম পান। অনেকেরই খাবার খাওয়ার পর পান না খেলে শতকরা একশ ভাগ তৃপ্তি পান না। এই পানের যেমন রয়েছে স্বাস্থ্য উপকারিতা তেমনি আছে কিছু অপকারিতাও।
চলুন জেনে নেওয়া যাক পানের উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে –
উপকারিতা:
১. পান খেলে মুখের স্বাদ ফিরে আসে।
২.  রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করতে পান সাহায্য করে।
৩. পান হজম শক্তি বাড়ায়।
৪. পান খেলে পেট পরিষ্কার হয়।
৫. হৃদস্পন্দন নিয়ন্ত্রণ করে পান।
৬. গলার সমস্যায় পান খুব উপকারী। আওয়াজ পরিস্কার করতে পান সাহায্য করে।
৭. সর্দি কাশি হলে পানের রসের সাথে মধু মিশিয়ে খেলে উপকার পাওয়া যায়।
৮. পানের সাথে গোলমরিচ, লবঙ্গ মিশিয়ে খেলে কাশি কমে যায়।
৯. মুখে ঘা হলে পানের মধ্যে কর্পুর দিয়ে চিবিয়ে খেয়ে বার বার পিক ফেললে সুফল পাওয়া যায়।
১০. পান খাওয়ার ফলে মুখে যে লালার সৃষ্টি হয় তা হজম শক্তি বৃদ্ধি করে।
পানের বেশ কিছু অপকারিতাও রয়েছে। পান খাওয়ার সময় এসব বিষয় ও খেয়ালে রাখতে হবে –
অপকারিতা:
১. খাওয়ার পরে পান খাওয়া উচিত। খালি পেটে পান খাওয়া উচিত নয়।
২. পানে বেশি মাত্রায় চুন খেলে দাঁতের ক্ষতি হয়।
৩. পানের সঙ্গে জর্দা মিশিয়ে খেলে পানের সব গুণ নষ্ট হয়ে যায়।
৪. বেশি পান খেলে মুখ ও চোখের রোগ হতে পারে। পানের সঙ্গে বেশি সুপারি খাবেন না।
৫. পানের সঙ্গে বেশি খয়ের খেলে ফুসফুসে ইনফেকশন হয়।
৬. যাদের জ্বর এবং দাঁতের সমস্যা রয়েছে তাদের পান খাওয়া বন্ধ করে দেওয়া উচিত।
৭. পান উষ্ণ এবং পিত্তকারক। শিশুরা এবং অন্তঃস্বত্ত্বা মহিলাদের পান খাওয়া উচিত নয়।