ঘুমের মধ্যে পরিচিত কারো সাথে শারীরিক সম্পর্ক নিয়ে স্বপ্ন দেখা খুবই বিব্রতকার একটি বিষয়। স্বপ্ন ভেঙ্গে ঘুম থেকে উঠার পর নিজের কাছে খুবই অপরাধী এবং লজ্জা অনুভব হতে থাকে। মনে মনে ভাবতে থাকি কেন এমন বাজে স্বপ্নটা দেখলাম। কিন্তু গবেষণা বলছে, এই ঘটনা খুব স্বাভাবিক।
যৌ’নতা নিয়ে স্বপ্ন দেখে লজ্জা না পেয়ে বরং জেনে নিন কোন স্বপ্নের কী মানে।
যৌ’নতা নিয়ে স্বপ্নে আসেন বস: গবেষণা বলছে, যৌ’ন স্বপ্নে বস্ এলে অবচেতন মনে আপনার নেতৃত্ব দেওয়ার বাসনা প্রবল। এক কাজ করুন, বসের সঙ্গে আলাদা করে মিটিংয়ে বসুন। আলোচনা করুন কোম্পানির ভবিষ্যত নিয়ে।
বন্ধুর সঙ্গে স্বপ্নে যৌ’নতা: নিজের এই আচরণে অবাক হবেন না। হয়তো আপনার বন্ধুর মধ্যে এমন কোনও গুণ রয়েছে যা অবচেতনে আপনার মধ্যে একটা অন্য রকম ভাললাগা তৈরি করে।
স্বপ্নে আপনার ক্রাশ: ক্রাশের সঙ্গে যৌ’ন সম্পর্কের ইচ্ছে গোপনে লালন করেন প্রায় প্রত্যেকেই। তাই এই স্বপ্ন খুব স্বাভাবিক।
প্রাক্তনকে নিয়ে যৌ’ন স্বপ্ন: এখানে নিজের আচরণ সম্পর্কে একটু সতর্ক হোন। হতে পারে আপনার প্রাক্তনের সঙ্গে আপনার শারীরীক সম্পর্ক ছিল। কিন্তু যেহেতু সেই সম্পর্ক থেকে আপনারা দু’জনেই বেরিয়ে এসেছেন তাই সেটা নিয়ে আর না ভাবাই ভাল।
পরিবারের কাউকে নিয়ে যৌ’ন স্বপ্ন দেখা: এই ক্ষেত্রেও নিজের জন্য অ্যালার্ম সেট করুন। পরিবারের সদস্যদের নিয়ে যৌ’ন সম্পর্ক একদল চিকিত্সকের কাছে অসুস্থতার লক্ষণ।
বলিউড অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত। দীর্ঘদিন ধরেই রয়েছেন লাইমলাইটের আড়ালে। সব ছেড়ে পাড়ি জমিয়েছিলেন আমেরিকায়। সেখান থেকে এ বছরের আগস্টে মুম্বাইয়ে এসেছিলেন তিনি। আর এসেই তুলে দিয়েছিলেন ঝড়।
‘মিটু’ মুভমেন্টের মাধ্যমে অভিনেতা নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে যৌ’ন হেনস্থার অভিযোগ তুলে তিনি বলেছিলেন- ‘হর্ন ওকে প্লিজ’ ছবির সেটে তার সঙ্গে আপত্তিকর ব্যবহার করেছিলেন অভিনেতা নানা পাটেকর। এমনকি বাড়াবাড়ি এতটাই হয়ে যায় যে, শেষ পর্যন্ত কাজটি ছেড়ে দিতে হয়েছিলো তনুকে।
তনুশ্রী আরও বলেছিলেন- মিটু হ্যাশট্যাগ আন্দোলন হলিউডে হয়তো এক বা দু’বছর ধরে চলছে। কিন্তু ভারতে আমিই হয়তো হেনস্থার শিকার হয়ে প্রথম মিডিয়ার সামনে মুখ খুলেছিলাম। কী ঘটেছিল, সেটা সবাই দেখেছে। কিন্তু সবার ধারণা, হেনস্তা নিয়ে মুখ খোলার পরেই তনুশ্রী ইন্ডাস্ট্রি থেকে গায়েব।
কিন্তু পুরো বলিউডই বিষয়টা জানতো। কিন্তু কেউ সেদিন প্রতিবাদ করেনি। আমার পাশে তো কেউ দাঁড়ায়নি বরং ওই অপরাধীকে আস্কারা দিয়েছে সবাই। আমার সঙ্গে কী ঘটেছিল, তা সারাদেশের মানুষ জানতো। কারণ ন্যাশনাল টেলিভিশন চ্যানেলগুলোতেও তিন দিন ধরে লাগাতার এই একই জিনিস চলেছিল।
এদিকে, পাঁচ মাস মুম্বাইয়ে থাকার পর আবার আমেরিকায় ফিরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তনুশ্রী। বিষয়টি নিশ্চিত করে ‘আশিক বানায়া’খ্যাত এই তারকা বলেন, আমার এখানে কোনো ভবিষ্যৎ নেই। আমি যখন মুম্বাই এসেছিলাম তখন ভেবেছিলাম এক মাস ঘোরাফেরা করে চলে যাবো। কিন্তু পাঁচ মাস হয়ে গেলো।
২০০৫ সালে ‘চকোলেট’ ছবির মধ্য দিয়ে বলিউডে পা রাখেন তনুশ্র দত্ত। পরে ২০১৫ সালে ‘আশিক বানায়া’ ছবিতে অভিনয় করে ব্যপক সফলতা পান। এরপর তাকে দেখা গেছে ‘ভাগাম ভাগ’, ‘গুড বয়, ব্যাড বয়’, ‘ঢোল’, ‘স্পিড’ ও ‘রুক’র মতো ছবিতে। সবশেষ ২০১০ সালে ‘অ্যাপার্টমেন্ট’ ছবিতে অভিনয় করেছেন তনু।